প্রতিনিধি নিয়োগ চলছে!!!!!যোগাযোগের ঠিকানা: মোবাইল: ০১৭১২-৮৪ ০৯ ৪২, ০১৭৩৯- ৮৪ ৬১ ১৪ !!!!!!! ই-মেইল: shadhinkantho24@gmail.com

চলমান তাপপ্রবাহে ঘাটতির সাথে পাল্লা দিয়ে বাড়ছে লোডশেডিং – || স্বাধীনকন্ঠ২৪.কম ||
E-currency exchanger rating

চলমান তাপপ্রবাহে ঘাটতির সাথে পাল্লা দিয়ে বাড়ছে লোডশেডিং

নিজস্ব প্রতিবেদকঃ দেশজুড়ে বয়ে যাচ্ছে তাপপ্রবাহ। সেই সাথে বাড়ছে বিদ্যুতের চাহিদা। কিš‘ চাহিদা বাড়লেও বিদ্যুৎ উৎপাদন ঘাটতি পূরণ করতে পারছে না। ফলে চাহিদার সাথে পাল্লা দিয়ে লোডশেডিংও বাড়ছে। আর আসন্ন রমজানে ১০ হাজার মেগাওয়াট বিদ্যুৎ উৎপাদনের ঘোষণা দেয়া হলেও এখনো ওই বিষয়ে তেমন কোনো প্রস্তুতি দেখা যাচ্ছে না। বর্তমানে ঢাকায় লোডশেডিং বাড়ছে। আর ঢাকার বাইরের আবহাওয়া আরো খারাপের দিকে যাচ্ছে। প্রয়োজনীয় বিদ্যুৎ পাওয়া না গেলে আগামীতে ঢাকাসহ জেলা পর্যায়ে লোডশেডিংয়ের কারণে বাড়বে মানুষের দুর্ভোগও। বিদ্যুৎ বিভাগ সংশ্লিষ্ট সূত্রে এসব তথ্য জানা যায়।
সংশ্লিষ্ট সূত্র মতে, এবারের পুরো রমজানজুড়েই গরম থাকবে। ফলে স্বাভাবিকভাবেই সারাদেশে বিদ্যুতের চাহিদাও অনেক বাড়বে। কিন্তু সরকারি বিদ্যুৎ কেন্দ্রগুলোর যে আবহাওয়া তাতে রমজানে সরকারের টার্গেট অনুযায়ী বিদ্যুৎ উৎপাদন ১০ হাজার মেগাওয়াট করা সম্ভব হবে না। তাতে রোজাদারদের ভোগান্তির মুখে পড়তে হবে। ইফতারি, তারাবি ও সেহেরির সময় চাহিদা বেড়ে গেলে গ্রামের লোডশেডিং চরম আকার ধারণ করবে। ডিপিডিসি ও ডেসকোকে ঢাকায়ও বিভিন্ন স্থানে লোডশেডিং করতে হবে। তাছাড়া ১০ হাজার মেগাওয়াট বিদ্যুৎ উৎপাদন করলেও সঞ্চালন ও বিতরণ লাইন সংস্কার না হওয়ায় উৎপাদিত বিদ্যুৎ লাইনে সরবরাহ করা সম্ভব হবে না। দুর্বল বিতরণ লাইনে প্রয়োজনের অতিরিক্ত বিদ্যুৎ সরবরাহ করলেই বিভিন্ন স্থানে লাইন ও ট্রান্সফরমার জ্বলে যাবে। তাতে মানুষের ভোগান্তি আরো বাড়বে। আর রমজানে বিদ্যুৎ উৎপাদন বাড়াতে হলে সার কারখানায় গ্যাস সরবরাহ বন্ধ রাখার বিকল্প নেই। ইতিমধ্যে সরকার ওই সিদ্ধান্ত নিলেও তা বাস্তবায়ন হয়নি। বর্তমানে সার কারখানাগুলোতে ২১ কোটি ঘনফুট গ্যাস সরবরাহ করতে হয়েছে। যা মোট উৎপাদিত গ্যাসের ৮ শতাংশের বেশি। রমজানে ওই পরিমাণ গ্যাস যদি বিদ্যুৎ কেন্দ্রগুলোতে দেয়া সম্ভব না হয় তাহলে অনেকগুলো বিদ্যুৎ কেন্দ্র থেকেই প্রয়োজনীয় বিদ্যুৎ উৎপাদন সম্ভব হবে না। তাতে ১০ হাজার মেগাওয়াট বিদ্যুৎ উৎপাদনের টার্গেট কোনোভাবেই অর্জন করা সম্ভব হবে না।
সূত্র জানায়, বর্তমানে দেশে প্রতিদিন ১২শ থেকে ১৫শ মেগাওয়াট বিদ্যুৎ ঘাটতি থাকছে। ফলে বাধ্য হয়েই বিদ্যুৎ বিতরণ কোম্পানিগুলোকে দেশব্যাপী লোডশেডিং করতে হয়েছে। তার মধ্যে সবচেয়ে বেশি লোডশেডিং করেছে আরইবি (পল্লী বিদ্যুতায়ন বোর্ড)। কারণ ঢাকার চাহিদা মেটাতে আরইবির সরবরাহ অনেকাংশে কাটছাঁট করেছে পিডিবি (বিদ্যুৎ উন্নয়ন বোর্ড)। ফলে ঢাকার বাইরের গড়ে ৬-৭ ঘণ্টা লোডশেডিং করতে হয়েছে। কোথাও কোথাও আরো বেশি। ঢাকাকে আলোকিত রাখতে রাতে বেশিরভাগ গ্রামকে রাখা হয়েছে অন্ধকারে। বিদ্যুৎ সংকটে ঢাকার বাইরে অনেক শিল্পকারখানা সন্ধ্যার পরই বন্ধ রাখতে হয়েছে। এমনকি দিনেও অধিকাংশ কল-কারখানায় নিরবচ্ছিন্ন বিদ্যুৎ সরবরাহ করতে পারছে না আরইবি। মূলত চাহিদা অনুযায়ী বিদ্যুৎ পাওয়া যাচ্ছে না বলেই বাধ্য হয়ে আরইবিকে লোডশেডিং করতে হয়েছে। 
সূত্র আরো জানায়, রমজানে সরকারের বিদ্যুৎ উৎপাদন ১০ হাজার মেগাওয়াট করার টার্গেট আছে। ওই কারণে বেশ কয়েকটি বিদ্যুৎ কেন্দ্র মেরামতের জন্য বন্ধ রাখতে হয়েছে। তার মধ্যে মেঘনাঘাট, সিরাজগঞ্জ, আশুগঞ্জ, রংপুর, বড়পুকুরিয়াসহ বেশ কয়েকটি বিদ্যুৎ কেন্দ্র বন্ধ আছে। কয়েকটি মেরামতের পর ইতিমধ্যে চালু হয়েছে। তার মধ্যে রয়েছে ভেড়ামারার ২১৪ মেগাওয়াট বিদ্যুৎ কেন্দ্র। বাকিগুলোও স্বল্পসময়ের মধ্যে চালু হলে বিদ্যুৎ পরিস্থিথি স্বাভাবিক হবে। মূরত বর্তমানে অতিরিক্ত গরমের কারণে চাহিদা বেড়ে যাওয়ায় লোডশেডিং বাড়ছে।
এদিকে গত শনিবার রাতে হঠাৎ বন্ধ হয়ে যায় বেসরকারি বিদ্যুৎ কোম্পানি সামিট পাওয়ারের বিবিয়ানা ইউনিট ২-এর ৩৪১ মেগাওয়াট বিদ্যুৎ কেন্দ্রটি। কারিগরি ত্রুটির কারণে বন্ধ হয়ে যাওয়া কেন্দ্রটিতে বর্তমানে মেরামতের কাজ চলছে। ওই কেন্দ্রটি বন্ধ হয়ে যাওয়ায় সিলেট, হবিগঞ্জ ও আশপাশের এলাকায় ব্যাপক লোডশেডিং চলছে। বিদ্যুতের অভাবে অনেক শিল্পকারখানা বন্ধ হয়ে গেছে। তাছাড়া বর্তমানে বন্ধ আছে এরকম বিদ্যুৎ কেন্দ্রগুলো হলো বিবিয়ানা ৩৪১ মেগাওয়াট, রংপুর ২০০ মেগাওয়াট, ভেড়ামারা ২১৪ মেগাওয়াট, বড়পুকুরিয়া ২১০ মেগাওয়াট, মেঘনাঘাট ৪২৫ মেগাওয়াট, সিরাজগঞ্জ ২২৫ মেগাওয়াট, আশুগঞ্জ ৩৬০ মেগাওয়াট।
অন্যদিকে সম্প্রতি আন্তঃমন্ত্রণালয়ের এক সভায় চলতি গ্রীষ্ম মৌসুম ও আসন্ন রমজানে বিদ্যুৎ সরবরাহ পরি¯ি’তির সার্বিক বিষয়ে আলোচনা হয়। সভায় বলা হয়, রমজানে দোকানপাট, মার্কেট ও বিপণিবিতানগুলো খোলা রাখার বিষয়ে বিদ্যমান আইন অনুসরণ করা হবে। রমজানে পিক আওয়ারে রি-রোলিং মিল, ওয়েল্ডিং মেশিন, ওভেন, ইস্ত্রির দোকানসহ অধিক বিদ্যুৎ ব্যবহারকারী সরঞ্জামাদির ব্যবহার বন্ধ রাখা হবে। এসব সিদ্ধান্ত  বাস্তবায়নের জন্য মনিটরিং টিম গঠন করা হয়েছে। বিদ্যুৎ সরবরাহ পরি¯ি’তি স্বাভাবিক রাখার জন্য গ্যাস সরবরাহ বাড়ানোর জন্য বিভিন্ন গ্যাস বিতরণ কোম্পানিকে নির্দেশ দেয়া হয়েছে। সুপার মার্কেট, পেট্রুলপাম্প ও সিএনজি গ্যাস স্টেশনে প্রয়োজনের অতিরিক্ত বাতি ব্যবহার বন্ধ করতে হবে। ইফতার ও তারাবির সময় এসি ব্যবহার বন্ধ, বিদ্যুতের অপচয় রোধে সিএফএল বাল্বের পরিবর্তে এলইডি বাল্ব প্রতি¯’াপনের নির্দেশনা দেয়া হয়।
এ প্রসঙ্গে বিদ্যুৎ বিভাগের সচিব ড. আহমদ কায়কাউস জানান, বর্তমানে সর্বো”চ ৯ হাজার ২১২ মেগাওয়াট বিদ্যুৎ উৎপাদনের রেকর্ড আছে। রমজানে তা বাড়িয়ে ১০ হাজার মেগাওয়াট উৎপাদন করা হবে। সেজন্য সব ধরনের প্র¯‘তি শুরু করেছে বিদ্যুৎ বিভাগ। পাশাপাশি উৎপাদিত বিদ্যুৎ বিভিন্ন এলাকায় পৌঁছানোর জন্য সঞ্চালন লাইনেরও সংস্কার করা হ”েছ। এ অব¯’ায় রমজানে ইফতার-তারাবি ও সেহেরির সময় লোডশেডিং থাকবে না। লোডশেডিং করতে হলে আগে থেকেই সংশ্লিষ্ট এলাকায় জানিয়ে দেয়া হবে। সেজন্য অগ্রিম শিডিউল তৈরি করে সবাইকে জানানো হবে। আর প্রথম রমজান থেকেই বিকাল ৫টা থেকে রাত ১১টা পর্যন্ত সিএনজি স্টেশন বন্ধ রাখা হবে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*

x

Check Also

গোবিন্দগঞ্জে সড়কে গভীর খাদ, দুর্ভোগ চরমে

গাইবান্ধা প্রতিনিধি : গাইবান্ধার গোবিন্দগঞ্জে ঢাকা-রংপুর এবং গোবিন্দগঞ্জ-দিনাজপুর মহাসড়কের সংযোগ স্থল থানা চারমাথা মোড়ে ড্রেন ভেঙ্গে সড়কে গভীর খাদের সৃষ্টি ...

Translate »
shares