কৃষি

কৃষকের ঘরে নতুন ধান, প্রভাব ফেলবে বাজার নিয়ন্ত্রণে

নীলফামারী প্রতিনিধি : চালের বাজারে ঊর্ধ্বগতির সময়ে জেলায় সুসংবাদ বয়ে এনেছে আগাম জাতের আমন ধান। এ জাতের ধানের কাটামাড়াই চলছে এখন পুরোদমে। নতুন ধান স্বস্থি এনে দিয়েছে কৃষকসহ এলাকাবাসীকে। জেলা কৃষি বিভাগ সূত্র মতে, জেলায় আগাম জাতের আমন ধান আবাদ হয়েছে ২০ হাজার হেক্টর জমিতে।এ সব জমিতে ধান উৎপাদন হবে ৯০ হাজার মেট্রিক টন।আর এতে চাল হবে ৬০ হাজার মেট্রিক টন। যা চালের ঊর্ধ্বমুখী বাজার দর কমাতে একটি বড় প্রভাব ফেলবে। জেলার ছয় উপজেলায় কমবেশী এ ধানের আবাদ হলেও বেশী হয়েছে কিশোরগঞ্জ উপজেলায়। কৃষি বিভাগের এমন তথ্যে কিশোরগঞ্জ উপজেলার বিভিন্ন গ্রাম ঘুরে দেখা গেছে, বিস্তীর্ণ এলাকায় আগাম জাতের ধানের আবাদ। ...

Read More »

ক্ষতিগ্রস্থ অর্ধলাখ কৃষকের মধ্যে প্রণোদনা পেয়েছেন ৩২ জন

টাঙ্গাইল প্রতিনিধি : টাঙ্গাইলের ভূঞাপুর উপজেলায় এবারের বন্যায় ক্ষতিগ্রস্থ ৪৪ হাজার ১৫৮জন কৃষকের মধ্যে সরকারি প্রণোদণা হিসেবে ধানের বীজ পেয়েছেন মাত্র ৩২জন কৃষক। চলতি বছরের ভয়াবহ বন্যায় ধানের চারা প্রথম দফার পানিতে তলিয়ে যাওয়ায় ব্যাপক ক্ষতির মুখে পড়ে কৃষক। যমুনার পানি কমতে থাকলে দ্বিতীয় দফায় কৃষকরা পুনরায় ধান চাষ রোপনে ধানের চারা সংকটে পড়ে। বিভিন্ন স্থান থেকে ধানের চারা সংগ্রহ করে জমিতে রোপন করে তারা। এরপরও বন্যায় বীজতলা বিনষ্ট হওয়ায় কূল-কিনারা পাচ্ছেনা কৃষকরা। এদিকে, আমন চারা রোপনের মৌসুমও প্রায় শেষ। খাবার সংকটের আশঙ্কায় তৃতীয় দফায় তারা জমিতে চারা রোপন করছেন। ভূঞাপুর কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তর সুত্রে জানা গেছে, চলতি বছর ভয়াবহ ...

Read More »

জয়পুরহাটে ৮২ লাখ টাকা কৃষি প্রণোদনা বরাদ্দ

নিজস্ব প্রতিবেদকঃ জেলায় বন্যার ক্ষতি পুষিয়ে নিতে ক্ষতিগ্রস্ত কৃষকদের জন্য ৮১ লাখ ৮২ হাজার ১৭০ টাকা কৃষি প্রণোদনা বরাদ্দ করা হয়েছে। জেলা কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তর সূত্র জানায়, জেলার পাঁচ উপজেলার কৃষি প্রণোদনার জন্য নির্বাচিত কৃষকের সংখ্যা হচ্ছে ৭ হাজার ৫১৮ জন। এরমধ্যে রয়েছে গম চাষের জন্য ২ হাজার ২৫০ কৃষক, ভুট্টার জন্য ৭৫০, সরিষার জন্য ৪ হাজার ৫শ’ ও বেগুন চাষের জন্য ১৮ জন। কৃষি প্রণোদনার আওতায় জেলায় ২ হাজার ২৫০ বিঘা জমিতে গম, ভুট্টা ৭৫০ বিঘা, সরিষা ৪ হাজার ৫শ’ বিঘা ও বেগুন চাষের জন্য ১৮ বিঘা জমি নির্বাচন করা হয়েছে। গম চাষের জন্য প্রতি কৃষক পাবেন ২০ কেজি ...

Read More »

কাহারোলে কৃষকদের আর্থিক সংকটের কারণে চাষাবাদ ব্যাহত

দিনাজপুর প্রতিনিধিঃ : দিনাজপুরের কাহারোল উপজেলায় বিভিন্ন ইউনিয়নে গত আগস্ট মাসের বন্যায় প্রায় ৮ হাজার ৭ শত ৫০ জন কৃষকের আমন ধানের জমির ধান সম্পূর্ণ নষ্ট হয়ে গেছে। উপজেলার বিভিন্ন এলাকায় বন্যায় আমন ধান, কলা ও শাক সবজি সহ ব্যাপক ক্ষয়-ক্ষতি হয়েছে। কাহারোল উপজেলা কৃষি অফিস সূত্রে জানা গেছে গত ১২ই আগস্ট উপজেলার বিভিন্ন এলাকায় পানি ঢুকে পড়ে। এতে করে উপজেলার সুন্দর পুর ইউ,পি, মুকুন্দপুর ইউ,পি ও রামচন্দ্রপুর ইউনিয়নের বিভিন্ন গ্রাম প্লাবিত হয়। বন্যায় ১ হাজার ৯শ ৯৪ হেক্টর আমন ধান ও ৫ হেক্টর সবজি সম্পূর্ণ রুপে নষ্ট হয়ে গেছে। এতে করে প্রায় ২৫ কোটি টাকার ক্ষতি হয়েছে ৮ হাজার ...

Read More »

বন্যায় ক্ষতিগ্রস্থ কৃষকের ঘুরে দাঁড়ানোর লড়াই

টাঙ্গাইল প্রতিনিধি : উজান থেকে নেমে আসা পাহাড়ি ঢল আর অতিবৃষ্টির ফলে যমুনা ও ধলেশ্বরীর পানি বিপদসীমার দেড়শ সেঃমিঃ ওপর দিয়ে প্রবাহিত হয়। টাঙ্গাইলের ৯টি উপজেলায়ই বানের পানি ঢুকে পড়ে। তবে ৫টি উপজেলায় পানিবন্দি হয়ে পড়ে প্রায় সাড়ে চার লাখ মানুষ। এসব এলাকায় লোকসানের পরিমানও বেশি। বিশেষ করে জেলার রোপা আমনের অপূরণীয় ক্ষতি হয়। বন্যায় ক্ষতি পোষাতে ঘুরে দাঁড়ানোর চেষ্টা করেও বারবার হোঁচট খাচ্ছে ক্ষতিগ্রস্থ কৃষক। দুই দফায় জমিতে চারা লাগানোর পরও বানের পানিতে তলিয়ে দু’বারই বিনষ্ট হয়েছে রোপা আমনের চারা। নিজের পরিবারের আগাম খাদ্য সংকট ভেবে কৃষক দিশেহারা হয়ে পড়েছে। ফলে আবারো ঘুরে দাঁড়ানোর চেষ্টা করছে কৃষকরা। তৃতীয় দফায় ...

Read More »

পলাশবাড়ী আখ চাষে বাম্পার ফলন

গাইবান্ধা প্রতিনিধি : উপজেলায় চলতি বছর আখের বাম্পার ফলনের সম্ভাবনা রয়েছে। ইতোমধ্যে লক্ষ্যমাত্রার চেয়ে ১৬ হেক্টর বেশি জমিতে আখের আবাদ সম্পন্ন হয়েছে। মোট ১শ’ ৬০ হেক্টর জমিতে আবাদকৃত আখের ফলন লক্ষ্যমাত্রা নির্ধারণ হয়েছে । সাধারণত আখের রোগ-বালাই কম হওয়াতে পরিশ্রমও তেমন হয় না। এখন দাম ভালো পাওয়ায় অনেক কৃষকরাই আখ চাষে আগ্রহী হয়ে উঠছে। কৃষি বিভাগ সূত্র জানায়, ভোলায় কালী বোম্বাই, বোম্বাই, ২০৮, বাসপাতা জাতের আখের চাষ বেশি হয়। প্রায় বছরকালীন মেয়াদের ফসল আখ গত বছরের নভেম্বর-ডিসেম্বরের দিকে ক্ষেতে রোপণ করেছেন কৃষকরা। সেপ্টেম্বর থেকে অনেক স্থানে আগাম কর্তন শুরু হলেও অক্টোবর পর্যন্ত ফসল তুলবে চাষিরা। তবে বর্তমানে বাজার দর বেশি ...

Read More »

নওগায় বানভাসি কৃষকের ঘুরে দাঁড়ানোর লড়াই

নওগাঁ প্রতিনিধি : বানের পানি নেমেছে কিছুদিন আগে। তবে ঘা এখনও শুকায়নি বানভাসিদের। বসতবাড়িতে ফিরতে শুরু করেছে নওগাঁর বন্যাদূর্গত এলাকার মানুষ। জীবন যুদ্ধে ঘুরে দাঁড়াতেও শুরু করেছেন তারা। উজান থেকে নেমে আসা পাহাড়ি ঢল ও অতি বৃষ্টিতে জেলার ১১টি উপজেলা বন্যা কবলিত হয়ে পড়ে। ফলে আমন ও সবজিসহ ফসলের ব্যাপক ক্ষতি হয়। বানের পানি নেমে যাওয়ায় বানভাসি কৃষকরা এখন ঘুরে দাঁড়াতে চেষ্টা করছেন। তবে ধানের চারা সংকট থাকায় ক্ষতিগ্রস্ত কৃষক নতুন করে জমিতে ধান রোপন করতে পারছেন না। অনেক কৃষক সরকারি সহযোগিতা পাননি বলেও অভিযোগ করেন। জেলা কৃষি সম্প্রসারণ অধিদফতর সূত্রে জানা যায়, বন্যায় এ বছর জেলায় ৫৪ হাজার ৩০০ ...

Read More »

হাইড্রোপনিক কৃষি খামার জনপ্রিয় হচ্ছে

নিউজ ডেস্কঃ নেট হাউজে হাইড্রোপনিক কৃষি খামার গড়ে তুলেছেন এক উদ্যোক্তা। দোহারের শিল্প উদ্যোক্তা মিজানুর রহমান পরীক্ষামূলক আধুনিক পদ্ধতির কৃষিতে এসে অল্পদিনেই বেশ তৃপ্ত। ভালো ফলাফল দেখে আগামীতে আরো বড় পরিসরে নিয়ন্ত্রিত পরিবেশে কৃষি খামার গড়ার উদ্যোগ নিচ্ছেন তিনি। এদেশেও শুরু হয়ে গেছে কৃষিখামারকে শিল্পে পরিণত করার দৌড়। ঢাকার দোহারের তিন দোকান এলাকায় মাত্র ৩ হাজার বর্গফুট এলাকায় গড়ে তোলা হয়েছে নেটহাউজ। সেখানে হাইড্রোপনিক পদ্ধতিতে শুরু হয়েছে টমেটো চাষ। এই উদ্যোগে কারিগরী সহায়তা দিচ্ছে বাংলাদেশ কৃষি গবেষণা ইনস্টিটিউটের বিজ্ঞানী ড. সেলিম রেজা মল্লিক। ইতোমধ্যে লাভজনক এই কৃষি উদ্যোগ দৃষ্টি কেঁড়েছে সাধারণ কৃষকের। কয়েকমাস প্রাপ্তিকে সাফল্য হিসেবে নিয়ে আগামীতে আরো বড় ...

Read More »

সৌভাগ্যের প্রতীক টাকার গাছ

নিউজ ডেস্কঃ শোভা বর্ধনকারী এই গাছটির নাম মুলত পথোস। বাংলাদেশ এবং এশিয়া মহাদেশের কয়েকটি দেশে এই গাছ মানি প্ল্যান্ট নামে পরিচিত। গ্রীষ্ম, বর্ষা ও শীত কালের আবহাওয়া এমনকি সব পরিবেশ মানিয়ে নিতে সক্ষম এই মানি প্ল্যান্ট। বাংলাদেশে এই গাছকে শোভাবর্ধক হিসেবেই রাখা হয়। দ্রুত বর্ধনশীল বিধায় বাংলাদেশে একে আদর করে বলা হয় টাকার গাছ। এই গাছকে সৌভাগ্যের প্রতীক বলে গণ্য করা হয়। ব্যাংক ও মুদ্রা ব্যবস্থায় প্রবৃদ্ধির চিহ্ন হিসেবে এই গাছের ছবি ব্যবহারের নজীর আছে। গৃহসজ্জায় এর বহুল ব্যবহার হয়ে থাকে। প্রতিকূল পরিবেশ সহিষ্ণু হওয়ায় এবং তেমন পরিচর্যার প্রয়োজন হয় না বিধায় সৌখিন মানুষের কাছে এর অত্যন্ত কদর। রাজধানী ঢাকায় ...

Read More »

সাঘাটায় বাড়ছে কৃষকের ক্ষয়ক্ষতি

গাইবান্ধা প্রতিবেদক : দু-দফা বন্যায় গাইবান্ধার সাঘাটায় কৃষকের ব্যাপক ক্ষয়-ক্ষতি হয়েছে। ক্ষতির শিকার কৃষকরা এবার আর্থিক ধাক্কা সামলে উঠতে পারবেন না। উপজেলার নিচু ৪ ইউনিয়নে রোপনকৃত আমন ধান সম্পুর্নরুপে নষ্ট হয়ে গেছে। উঁচু ৫ ইউনিয়নেও গত ৫ দিন ধরে আমন ধান পানিতে নিমর্জিত। এক সপ্তাহ বন্যার পানিতে ধান ডুবে থাকলে ফলন কমলেও কিছু ধান পাওয়ার আশা থাকে। কিন্তু জমি থেকে কম সময়েই পানি নেমে যাওয়ার কোন লক্ষণ না থাকায় মাথায় আকাশ ভেঙে পড়েছে তাদের। উপজেলার হলদিয়া, সাঘাটা, জুমারবাড়ি ও ভরতখালী ইউনিয়নে প্রথম দফায় প্রায় ৩০০ হেক্টর আমন ধান ও বিজতলা ক্ষতি হয়। এরপর ২য় দফা বন্যায় পদুমশহর, বোনারপাড়া, ঘুড়িদহ, কামালেরপাড়া ...

Read More »
Translate »